ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

নিজে বাঁচতে এবার বিএনপির ওপর দোষ চাপালেন মির্জা ফখরুল!

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:১৮, ১৫ জুন ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দলের চেয়ে ব্যক্তিস্বার্থ বড় — এমন অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে। দলের দুঃসময়েও মির্জা ফখরুল বেশ হাসিখুশি জীবন কাটাচ্ছেন বিএনপির অনেক নেতা গোপনে এমন কথা প্রায়ই বলেন। এবার মির্জা ফখরুল নিজে বাঁচতে প্রকাশ্য সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ওপর দোষ চাপালেন।

সূত্র জানায়, খালেদা জিয়ার শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে গতকাল টুইট করেছিলেন মির্জা ফখরুল। সেই টুইট নিয়ে বিএনপির ভেতর-বাইরে নানা সমালোচনা হয়।

আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সেই টুইটের কথা অস্বীকার করে এর জন্য বিএনপির গবেষণা সংস্থা বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ অ্যান্ড কমিউনিকেশনকে (বিএনআরসি) দায়ী করেছেন মির্জা ফখরুল। নিজে বাঁচতে বিএনপির ওপর দোষ চাপানোয় দলের অনেক নেতাই ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে আমি কোনো টুইট করিনি। প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে যখন সাংবাদিকরা বলেন, টুইটটি বিএনআরসি থেকে সাংবাদিকদের মেইলেও পাঠানো হয়েছে তখন দলের ওপর দোষ চাপান মির্জা ফখরুল। বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘ওটা তো পার্টির টুইট। আমি টুইট করিনি। কে চালায় না চালায়, আমি জানি না। যদি আমার অফিস থেকে যায়, আই মাস্ট চেক ইট। কেউ যদি আমাকে না জানিয়ে আমার নামে টুইট করে, তাকে তো বের করতে হবে তদন্ত করে। আমি দেখব বিএনআরসি যদি দিয়ে থাকে, আমি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ফখরুল সাহেব দলের মহাসচিব। তিনি এভাবে বিএনপির ওপর দোষ দিয়ে নিজের ভুলকে অস্বীকার করতে চাচ্ছেন। বিষয়টি দুঃখজনক। আমি আশা করি, আমাদের নেতা তারেক রহমান এসব বিষয়ে নজর রাখবেন।

বিশ্লেষকরা জানান, মির্জা ফখরুল বিএনপির মহাসচিব। কিন্তু তিনি যদি বলেন তার অফিস থেকে কে টুইট করেন তা তিনি জানেন না, সেটি বিশ্বাসযোগ্য নয়। আসলে ধরা পড়ে এখন অস্বীকার করে নিজের দোষ দলের ঘাড়ে চাপিয়ে নিজে বাঁচার চেষ্টা করছেন মির্জা ফখরুল। এটি অসততা উল্লেখ করে বিশ্লেষকরা বলেন, নিজের সুবিধার জন্য যদি একটি রাজনৈতিক দলের দায়িত্বশীল কেউ সেই দলের ওপরই দোষ চাপায়, তাহলে সেই দলের উচিত বিষয়টি ভালো করে তদন্ত করা। নয়ত মির্জা ফখরুলের মত নেতারা ব্যক্তিস্বার্থে বিএনপিকে বিক্রি করে ফেলবে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়