ঢাকা, মঙ্গলবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৫ ১৪২৮

পল্লবীতে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা মামলায় তিন দিনের রিমান্ডে ব্লেড বাবু

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৪১, ২৬ জুলাই ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর পল্লবীতে প্রকাশ্যে সন্তানের সামনে কুপিয়ে সাহিন উদ্দিনকে হত্যার অভিযোগে করা মামলায় আসামি মঞ্জুরুল হাসান বাবু ওরফে ইয়াবা বাবু ওরফে ব্লেড বাবুর তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

ঢাকা মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মন্ডলের আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সোমবার সংশ্লিষ্ট আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. সেলিম রেজা বিষয়টি করেছেন।

এদিন আসামি ব্লেড বাবুকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের দশ দিন করে রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক সৈয়দ ইফতেখার হোসেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে গতকাল শনিবার রাত ৯টার দিকে মিরপুর-১২ নম্বরের লাল মাঠ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে এ মামলায় মোট ছয় আসামি ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আসামিরা হলেন- মো. রকি তালুকদার, মুরাদ নুর, মোহাম্মদ হাসানের, সুমন বেপারি, শরীফ ও ইকবাল। এছাড়া মামলার প্রধান আসামি লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সাবেক এমপি ও ইসলামী গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান এম এ আউয়াল, দিপু, জহিরুল ইসলাম, কালা বাবু ওরফে কালু, টিটো রিমান্ড শেষে কারাগারে আটক রয়েছে।

এদিকে, গত ১৬ মে সাহিন উদ্দিন হত্যাকাণ্ডের পর ওই রাতেই নিহতের মা আকলিমা বেগম বাদী হয়ে পল্লবী থানায় সাবেক এমপি আউয়ালসহ ২০ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর মামলাটি ডিবি পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। 
মামলার এজাহারে আকলিমা বেগম বলেন, গত ১৬ মে বিকেল ৪টিকে সুমন ও টিটু নামের দুই যুবক সাহিন উদ্দিনকে জমির বিরোধ মেটানো হবে জানিয়ে ফোন করে ডেকে নেন। 

সাহিন উদ্দিন মোটরসাইকেলে পল্লবীর ডি-ব্লকের ৩১ নম্বর সড়কের ৪০ নম্বর বাসার সামনে গেলে সুমন ও টিটুসহ ১৪-১৫ জন মিলে তাঁকে টেনে-হিঁচড়ে ওই বাড়ির গ্যারেজে নিয়ে যায়। এ সময় সাহিন উদ্দিনের ছয় বছরের ছেলে মাশরাফি গেটের বাইরে ছিল। গ্যারেজে ঢুকিয়ে তাকে সন্ত্রাসীরা চাপাতি, চায়নিজ কুড়াল, রামদা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এরপর তাকে ওই গ্যারেজ থেকে বের করে ৩৬ নম্বর বাড়ির সামনে আবার কুপিয়ে ফেলে রেখে চলে যায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিহতের মায়ের অভিযোগ, পল্লবীর সেকশন-১২ বুড়িরটেকের আলীনগর আবাসিক এলাকার হ্যাভেলি প্রপার্টিজ ডেভেলপার লিমিটেডের এমডি এবং লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সাবেক এমপি এম এ আউয়ালের সঙ্গে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভাড়া করা স্থানীয় সন্ত্রাসীরা সাহিনুদ্দিনকে হত্যা করেছে। আনুমানিক পাঁচ কোটি টাকা মূল্যের ১০ একর জমি জবরদখলে বাধা দেওয়ায় তাঁকে খুন করা হয়েছে। নিহত সাহিন উদ্দিনের বাসা পল্লবীর ডি-ব্লকে।

উল্লেখ্য, গত ২৩ মে বন্দুকযুদ্ধে এ মামলার আসামি মনির নিহত হন। আড়াইটার দিকে পল্লবীর সাগুফতা হাউজিং এলাকায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি টিমের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সে নিহত হয়। এর আগে গত ২০ মে দিবাগত রাতে পল্লবীর ইস্টার্ন হাউজিং এলাকায় একই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মো. মানিক র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়