ঢাকা, বুধবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৮

কুমিল্লার কোরআন ইস্যু, ধর্মীয় দাঙ্গা লাগানোর জন্য বিএনপির ষড়যন্ত্র

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:০২, ১৪ অক্টোবর ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বিএনপির একাধিক নেতা বিভিন্ন সভায় বলেছিলো, জামায়াতকে বাদ না দিলে বিএনপির ভবিষ্যৎ অন্ধকার। এই প্রেক্ষিতে কয়েকদিন ধরেই জামায়াতে ইসলাম বিএনপিকে হুমকি দিয়ে বলছিলো, বিএনপির গোপন তথ্য সব তারা ফাঁস করে দেবে। কুমিল্লা শহরের একটি পূজামণ্ডপ থেকে কোরআন উদ্ধারের মধ্য দিয়ে নিশ্চিত হওয়া গেলো ধর্মীয় দাঙ্গা লাগানোই ছিলো বিএনপির ষড়যন্ত্র। যা জামায়াত ফাঁস করতে চাইছিলো।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, জামায়াত দেখতে চায় বিএনপি ২০ দল বিলুপ্ত করে কিনা। বিএনপি জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করে কিনা। জামায়াত নিজে যেচে বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করবে না। এ বৈঠকে জামায়াত এবং বিএনপির সম্পর্কের বিভিন্ন ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট নিয়ে আলোচনা হয়। জামায়াত যে বিভিন্ন সময় বিএনপিকে মোটা অঙ্কের আর্থিক সহায়তা করেছে সে সম্পর্কে নেতারা আলোচনা করেন। বৈঠক সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য খবরে জানা গেছে, সৌদি আরবসহ মুসলিম দেশগুলো থেকে বিএনপি নিয়মিত অর্থ পেত সংগঠন পরিচালনা এবং নির্বাচনের জন্য। সেই অর্থ আসতো জামায়াতের মাধ্যমে।

জামায়াত সৌদি আরবসহ কয়েকটি মুসলিম দেশে মুসলিম উম্মাহ প্রতিষ্ঠা এবং মুসলমানদের হেফাজতের জন্য বিএনপিকে অর্থ দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছিল। সেই সুপারিশের প্রেক্ষিতেই ১৯৮৮ সাল থেকে জামায়াত সৌদি আরব, কাতারসহ বিভিন্ন মুসলিম দেশগুলো থেকে নিয়মিত অর্থ পেত।

শুধুমাত্র মুসলিম দেশগুলো নয়, পাকিস্তানের সঙ্গে বিএনপির সু-সম্পর্ক তৈরিতেও জামায়াত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল বলে জামায়াতের নেতারা জানিয়েছেন। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপিকে যে বিপুল পরিমাণ অর্থ পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই দিয়েছিল, সেটা জামায়াতের সুপারিশেই দেওয়া হয়েছিল। সেই সময় জামায়াত পাকিস্তানকে জানিয়েছিল, পাকিস্তানি ভাবধারা বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত করতে গেলে এবং পাকিস্তানি স্বার্থ রক্ষা করতে পারে একমাত্র বিএনপি। জামায়াতের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আর্থিক কারণেই মূলত বিএনপি জামায়াতকে ছাড়তে রাজি নয়। যদি বিএনপি জামায়াতকে ছাড়ে তাহলে বিএনপির যে মোটা অঙ্কের অর্থের উৎস, সেটা বন্ধ হয়ে যাবে।

সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপির নানা দু:অবস্থা, সাংগঠনিক দুর্বলতা এবং নেতৃত্বের সংকটের কারণে এমনিতেই বিএনপিতে বৈদেশিক অর্থের উৎস কমে এসেছে। আওয়ামী লীগের যে পরিবর্তিত নীতি এবং আওয়ামী লীগের যে অবস্থান সে অবস্থানে মুসলিম উম্মাহ সন্তুষ্ট। তারা মনে করেন, বাংলাদেশের মুসলমান এবং ইসলামী স্বার্থ রক্ষার জন্য আলাদা কোন দলকে পৃষ্ঠপোষকতা করার দরকার নেই। বরং আওয়ামী লীগই মুসলমানদের স্বার্থ রক্ষার জন্য ভালো কাজ করছে।

এ কারণে নতুন ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এবার মুসলিমদের উত্তেজিত করার জন্য ভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলো বিএনপি। জুন মাসে করা এই পরিকল্পনার সার্বিক অংশীদার ছিলো জামায়াত। কিন্তু সেপ্টেম্বরে এসে জামায়াতকে ছাড়ার কথা বিএনপি একাধিকবার বললে, অক্টোবরের শুরুতে এক বৈঠকে তারা বিএনপির গোপন তথ্য ফাঁস করার হুমকি দেন। পরে সমঝোতা হওয়ায়, আর গোপন তথ্য ফাঁস হয় না। এই কারণে হিন্দু মন্দিরে কোরআন রাখতে সফল হয়ে যায় বিএনপি।

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
সর্বশেষ
জনপ্রিয়