ঢাকা, শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ৩ ১৪২৯

কুষ্টিয়ায় অস্ত্র মামলায় একজনের ১০ বছরের কারাদণ্ড

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:৩১, ৪ জুলাই ২০২২  

কুষ্টিয়ায় অস্ত্র মামলায় তাজুব্বর মালিথা নামে এক আসামিকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার অপর আসামি খাইরুল মন্ডলকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত। 

সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক তাজুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী রায় ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি তাজুব্বর মালিথা কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের বাজারপাড়া এলাকার আকবার মালিথার ছেলে। খালাস পাওয়া খাইরুল মন্ডল দৌলতপুর উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামের মধ্যপাড়ার মৃত নবিছ উদ্দিন মন্ডলের ছেলে।

রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১২ সালের ১৬ জুন রাতে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের আম-কাঁঠালের বাগানে অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি তাজুব্বর মালিথা ও খালাসপ্রাপ্ত খাইরুল মন্ডলকে গ্রেফতার করে মিরপুর থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছে থেকে একটি দেশীয় তৈরি এলজি বন্দুক, তিন রাউন্ড গুলি ও দুটি ককটেল বোমা উদ্ধার করা হয়। অস্ত্রসহ গ্রেফতারের পর একইদিন তাদের দুজনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মিরপুর থানায় মামলা হয়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পর আদালত এ মামলায় ১২ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ৪ জুলাই রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। নির্ধারিত তারিখে আদালতের বিচারক মামলার এক আসামিকে শাস্তির আদেশ দেন।

আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী বলেন, অস্ত্র মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায়  তাজুব্বর মালিথাকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায় ঘোষণার সময় আসামি উপস্থিত ছিলেন। এই মামলার অপর আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়