ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

৫০ হাজার বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৫৫, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি মধ্যে শূণ্য পদের তালিকা করে দেশের বেসরকারি মাধ্যমিক স্কুল এবং বিভিন্ন কলেজের জন্য ৫০ হাজার শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এবার বেসরকারি স্কুল-কলেজে শিক্ষকসঙ্কট দূর করতে পঞ্চম গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রায় ৫০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এরই অংশ হিসেবে দেশের বেসরকারি স্কুল-কলেজের শূন্য পদের তালিকা চেয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ তথ্য পাঠাতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সূত্র মতে মাউশির সহকারী পরিচালক (মাধ্যমিক-২) এস এম জিয়াউল হায়দার হেনরীর সই করা এ সংক্রান্ত একটি চিঠি ৯টি আঞ্চলিক কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। আরো জানা গেছে, এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজের প্রধান শিক্ষক, প্রিন্সিপাল, সহকারী প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য প্রথমে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে পাঠাতে হবে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা প্রাপ্ত তথ্য জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে পাঠাবেন। পরবর্তী সময়ে সেই তথ্য আঞ্চলিক কার্যালয়ে পাঠানো হবে। আঞ্চলিক কার্যালয় তথ্যগুলো একত্রিত করে মাউশিতে পাঠাবে।

আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে তথ্য পাওয়ার পর শূন্য পদের সংখ্যা বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। এরপর তারা নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে। মাউশি সূত্র জানায়, আগামী ১২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ই- রেজিস্ট্রেশন করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অপরদিকে এনটিআরসিএ জানিয়েছে, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি) শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশের লক্ষ্যে পঞ্চম নিয়োগ সুপারিশ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। পঞ্চম নিয়োগ সুপারিশ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পূর্বে এনটিআরসিএর প্রচলিত নিয়ম অনুসারে সব বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকের শূন্য পদের তথ্য চাহিদা (ই-রিকুইজিশন) অনলাইনে সংগ্রহ করা হবে। অনলাইনে চাহিদা প্রদানের পূর্বশর্ত হিসেবে প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আবশ্যিকভাবে ই-রেজিস্ট্রেশন (অনলাইন নিবন্ধন) কার্যক্রম সম্পাদন করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে এনটিআরসিএ জানিয়েছে, যেসব প্রতিষ্ঠান পূর্বেই ই-রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেছে, তাদের অবশ্যই ই- রেজিস্ট্রেশন প্রোফাইল হালনাগাদ করতে হবে। কোনো প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সময়ে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে ই-রেজিস্ট্রেশন সম্পাদন না করলে কিংবা প্রোফাইল হালনাগাদ না করলে, অনলাইনে নিয়োগযোগ্য শিক্ষকের শূন্যপদের চাহিদা (ই-রিকুইজিশন) প্রদান করা সম্ভব হবে না। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে ই- রেজিস্ট্রেশন করেছে, সেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে ই-রেজিস্ট্রেশন ফর্মের এডিট অপশনে ক্লিক করে প্রতিষ্ঠানের প্রোফাইল হালনাগাদ করতে হবে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়