ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

স্ত্রীকে সময় না দিয়ে উল্টো বেল্ট দিয়ে নির্যাতন করছে তারেক!

প্রকাশিত: ১০:০৯, ২২ জুলাই ২০২১  

বাবা জিয়াউর রহমানের পথেই হাঁটছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। কিছু হলেই স্ত্রীর গায়ে হাত তোলেন। করেন বেধড়ক মারধর। সম্প্রতি তিনি স্ত্রী জোবায়দাকে শাশুড়ির টিকা নেওয়ার ঘটনায় বেল্ট দিয়ে বেদম পিটিয়েছেন বলে একাধিক গোপন সূত্রে জানা গেছে।

সূত্রটির তথ্যমতে, দেশে যখন অসুস্থ অবস্থায় দিন অতিবাহিত করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, ঠিক তখন লন্ডনে আয়েশি ও ফুর্তিমুখর জীবনযাপনে ব্যস্ত তার জ্যেষ্ঠ সন্তান তারেক রহমান। শুধু তাই নয়, মাকে ফোন দেয়ার সময়টুকু পর্যন্তও নেই তার। দিনকেদিন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত এই চেয়ারম্যানের উশৃঙ্খলাপনা যেন বেড়েই চলেছে।

সকাল ১১টার আগে তিনি ঘুম থেকেই ওঠেন না। উঠেই বসে যান কি কি বিষয়ে গুজব ছড়ানো যায়, তা নিয়ে। পরে ১২টা থেকে শুরু করেন ওই সব গুজব নিয়ে মিডিয়া সেলের পেইড এজেন্টরদের সঙ্গে আলাপ। ১টা থেকে চলে ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে ফোনে দলীয় ফান্ডিংয়ের কথা। ঘড়ির কাটা যখন ঠিক ২টা তখন তিনি ছুটে যান লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপি নেত্রী ডালিয়া লাকুরিয়ার কাছে। সেখানে তার সঙ্গে করেন মধ্যাহ্নভোজ। ৩টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে নিপুন রায়ের সঙ্গে ভিডিও কল। এরপর ৫টা থেকে ৭টা পর্যন্ত হয় সাবেক ডাকসু ভিপি নূর, ইলিয়াস, তাসনিম খলিল গংয়ের সঙ্গে দেশবিরোধী বিষয়ে আলাপচারিতা। নাম মাত্র কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে সন্ধ্যা ৭টা থেকে শুরু হয় তার ক্যাসিনোতে জুয়া খেলা। পরে রাত ৯টায় ভোলেন না বিএনপি নেত্রী শামা ওবায়েদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলতে। এর মধ্যে তার স্ত্রী একাধিকবার ফোনে কল দিলেও তা রিসিভ করেন না তারেক।

পরবর্তীতে রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা তিনি ব্যস্ত থাকেন নাইট ক্লাবে ভাড়া করা নারীদের সঙ্গে মদ্যপান ও উন্মত্ত নৃত্যে। রাত সাড়ে ১২টায় আবারও ভিডিও কল। এবার সঙ্গীতশিল্পী বেবী নাজনীনের সঙ্গে। ঘন্টাব্যাপী কথা বলার শুরু করেন লন্ডন বিএনপির নারী নেত্রীদের সঙ্গে আড্ডা। এরপর মেতে ওঠেন কমবয়সী কল গার্লদের সঙ্গে সময়ক্ষেপণে। এসব অপকর্ম শেষে যখন ভোর ৫টার দিকে মাতাল অবস্থায় বাসায় ফেরেন, তখন স্ত্রী জোবায়দা কিছু বললেই তিনি শুরু করেন ঝগড়া। একপর্যায়ে কোমরের বেল্ট খুলে পিটিয়ে জখম করেন জোবায়দাকে। সম্প্রতি তার শাশুড়ি তার কথা অমান্য করে টিকা নেওয়ার পর তিনি আরও ক্ষিপ্ত হয়ে আছেন। এখন প্রায় প্রতিদিনই স্ত্রীকে পেটাচ্ছেন তিনি। করছেন অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ। এতে অতিমাত্রায় বিরক্ত তার প্রতিবেশীরা। অচিরেই তারা কমিউনিটিতে তার বিরুদ্ধে বিচার দেবেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, রক্ত যে কথা বলে, সে কথাটি আরও একবার প্রমাণ করলেন তারেক রহমান। তিনি তার বাবা জিয়াউর রহমানের মতোই অমানুষ হয়ে উঠেছেন। শুরু করেছেন বৌ পেটানো। এখনই তাকে থামানো না গেলে, কে জানে হয়তো জোবায়দাকে তিনি মেরেই ফেলবেন। আর মেরেও যে ফেলবেন না, তার কী গ্যারান্টি? কারণ, তার শরীরে তো বইছে খুনি জিয়ার রক্ত।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়