ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৯ ১৪২৭

শেরপুরের অসহায় বৃদ্ধা আছিয়া পেলেন টিনের পাকা ঘর

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩:৩২, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

শেরপুর শহরের দিঘারপাড় মহল্লার অসহায় বৃদ্ধা আছিয়াকে একটি টিনের পাকা ঘর উপহার দিয়েছেন শেরপুর জেলা পুলিশ।

বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে অসহায় বৃদ্ধ আছিয়ার জীবন যাপনের খবর প্রকাশের পর বিষয়টি শেরপুর জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নজরে আসে। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোপনে তথ্য সংগ্রহের পর বৃদ্ধার অসহায়ত্বের বিষয়টি জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বৃদ্ধা আছিয়ার জন্য একটি নতুন ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়।  ঘর নির্মাণ শেষে রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বৃদ্ধা আছিয়ার কাছে ঘরটি হস্তান্তর করেন পুলিশ সুপার হাসান নাহিদ চৌধুরী।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো সওয়াবের কাজ। সমাজের বিত্তবানদের উচিত অসহায় দরিদ্র মানুষদের পাশে দাঁড়ানো। আমি মানুষ এবং পুলিশ হিসেবে সব সময় মানবিক কাজগুলো করতে চাই। এমন অসহায়দের পাশে শেরপুর জেলা পুলিশ আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।’

এসময় পুলিশ সুপারের সহধর্মীনী ও পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতির সভানেত্রী কাজী মোনালিসা মারিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মাহমুদুল হাসান ফেরদৌস, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন, তার সহধর্মীনী সৈয়দা ইসরাত জাহানসহ ও পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

আছিয়ার প্রতিবেশী লোকমান মিয়া বলেন, আছিয়ার জীবন খুব কষ্টের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। কোনো দিন খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাতেন তিনি। তার ছেলে, মেয়ে, স্বামী কেউ নেই। ঘর পেয়ে তার অনেক উপকার হয়েছে। এজন্য আমরা পুলিশ ভাইদের ধন্যবাদ জানাই।

এ বিষয়ে স্থানীয় বস্তি উন্নয়ন নেত্রী কমলা বেগম বলেন, বৃদ্ধা আছিয়া বর্ষায় অনেক কষ্ট করতেন। সারারাত তার চালের ফুটো বেয়ে পানি পড়তো। মধ্যরাতে ঘুম থেকে উঠে আছিয়াকে পানি সেচতে হতো। যা তার জন্য ছিল অনেক কষ্টকর। দেরিতে হলেও তার জন্য একটা ঘরের ব্যবস্থা হলো। এজন্য শেরপুরের পুলিশ ভাইদের আমরা ধন্যবাদ জানাই।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়