ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জুন ২০২৪ ||  আষাঢ় ৪ ১৪৩১

শিক্ষাই হবে আগামী দিনের মেগা প্রজেক্ট : শিক্ষামন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:০৩, ১৩ জুলাই ২০২৩  

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, একটি মানসম্মত শিক্ষাই পারে সভ্যতার পরিবর্তন করতে। সময়ের চাহিদা পূরণে আমরা চাই, দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক তৈরি করতে। আমরা জ্ঞান, বিজ্ঞানে অগ্রসর শিক্ষার্থী তৈরি করতে চাই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শিক্ষাই হবে আগামী দিনের মেগা প্রজেক্ট। গতকাল বুধবার বিকালে রাজধানীর পূর্বাচল এলাকায় বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী প্রদর্শনী কেন্দ্রে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ২৪তম সমাবর্তনে সভাপতির বক্তব্য এসব কথা বলেন তিনি।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শুধুমাত্র দায়সারা ইতিহাস পাঠ যথেষ্ট নয় জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের আরো জানাতে হলে তাদের জন্য আরো বেশি পাঠ্য সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। আমাদের অতীত ও ঐতিহ্য সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের জানাতে উদ্যোগ নিতে হবে। এতে তারা আগামী দিনের যোগ্য নাগরিক হওয়ার পাশাপাশি দেশপ্রেমিক হিসেবে গড়ে উঠবে। তিনি বলেন, আমাদের নতুন শিক্ষাক্রম শিক্ষার্থীদের নতুন বাংলাদেশের দিকে নিয়ে যাবে। নতুন শিক্ষাক্রমে অভিজ্ঞতা-নির্ভর এবং সুখপাঠ্যের বিষয়গুলোয় জোর দেয়া হয়েছে। আমি বিশ্বাস করি, নতুন শিক্ষাক্রম সফল হবে।
এ সময় ডা. দীপু মনি সদ্য গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে বলেন, আপনার এ অর্জনে আপনার, শিক্ষক এবং অভিভাবকদের অবদান রয়েছে। তাই আপনাদের দেশের প্রতি, দেশের মানুষের প্রতি প্রতিশ্রুতি রাখতে হবে; তাদের কল্যাণের জন্য কাজ করতে হবে। এছাড়াও আগামী জীবনকে সাফল্যময় করতেও আপনাদের কাজ করতে হবে। সেজন্য নতুন নতুন বিষয়গুলো শেখার প্রতি, গবেষণার প্রতি চর্চা অব্যাহত রাখার পরামর্শ জানান তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পাশ্চাত্য আমাদের উপর জোর করে অনেক কিছু চাপিয়ে দিতে চায়; আমরা ছোট মন নিয়ে সামনে এগোতে চাই না। আমাদের সমৃদ্ধ ইতিহাস আছে। তাই মন ছোট করে এগিয়ে যাওয়ার দরকার নেই। আমরা মাথা উঁচু করে এগিয়ে যেতে চাই। সম্মান নিয়ে বাঁচতে হলে আমাদের তা করতেই হবে।
সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের পরিকল্পনা কমিশনের সাবেক ডেপুটি চেয়ারম্যান এবং সেন্টার ফর সোশ্যাল এন্ড ইকোনমিক প্রোগ্রেসের সম্মানিত ফেলো মি. মন্টেক এস আলুওয়ালিয়া। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- এনএসইউর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান জাভেদ মুনীর আহমদ, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য ড. জুনায়েদ কামাল আহমদ এবং এনএসইউর উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম। এ সময় ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য মিসেস ইয়াসমিন কামাল ও শাহরিয়ার কামাল উপস্থিত ছিলেন। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে এনএসইউর উপউপাচার্য অধ্যাপক ড. এম ইসমাইল হোসেনসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, শিক্ষক ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থীকে গ্র্যাজুয়েশন ডিগ্রি প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ২০ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক ও ভাইস চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়