ঢাকা, রোববার   ১৪ জুলাই ২০২৪ ||  আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

নবী-রাসুলগণ মানবজাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩৭, ২ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

নবী-রাসুলগণ মানবজাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান

নবী-রাসুলগণ মানবজাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান

মহান আল্লাহ পৃথিবীতে যত মানুষ প্রেরণ করেছেন তাদের ভেতর নবী-রাসুলগণই শ্রেষ্ঠ। তাদের শ্রেষ্ঠত্ব কোরআন-সুন্নাহ ও যুক্তি দ্বারা প্রমাণিত। আর এটাই সুস্থ বিবেকের দাবি। নিম্নে তাদের শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ পেশ করা হলো।

১. কোরআন : মহান আল্লাহ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানুষদের বর্ণনা এভাবে দিয়েছেন, ‘আর কেউ আল্লাহ এবং রাসুলের আনুগত্য করলে সে নবী, সত্যনিষ্ঠ, শহীদ ও সৎকর্মপরায়ণ—যাদের প্রতি আল্লাহ অনুগ্রহ করেছেন তাদের সঙ্গী হবে এবং তারা কত উত্তম সঙ্গী।’ (সুরা নিসা, আয়াত : ৬৯)

উল্লিখিত আয়াতে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানুষদের স্তর বর্ণনা করেছেন এবং তাদের প্রথম স্তরেই নবী-রাসুলদের কথা বলা হয়েছে।

অন্যত্র ইরশাদ হয়েছে, ‘আরো সৎপথে পরিচালিত করেছিলাম ইসমাইল, আলইয়াসআ, ইউনুস ও লুতকে এবং শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছিলাম বিশ্বজগতের ওপর প্রত্যেককে।’ (সুরা আনআম, আয়াত : ৮৬)

এ আয়াত দ্বারা প্রমাণিত পৃথিবীর সব সাধারণ মানুষের ওপর নবী-রাসুল সবার সর্বব্যাপী শ্রেষ্ঠত্ব রয়েছে।


২. হাদিস : রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর হাদিস দ্বারাও প্রমাণিত হয় নবী-রাসুলগণই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানব। যেমন মুসআব ইবনে সাদ (রহ.) হতে তার পিতার সূত্রে বর্ণনা করেন। তাঁর পিতা বলেন, আমি প্রশ্ন করলাম, হে আল্লাহর রাসুল, মানুষের মাঝে কার বিপদের পরীক্ষা সবচেয়ে কঠিন হয়? তিনি বললেন, নবীদের বিপদের পরীক্ষা, তারপর যারা নেককার তাদের, এরপর যারা নেককার তাদের বিপদের পরীক্ষা। মানুষকে তার ধর্মানুরাগের অনুপাত অনুসারে পরীক্ষা করা হয়।


তুলনামূলকভাবে যে লোক বেশি ধার্মিক তার পরীক্ষাও সে অনুপাতে কঠিন হয়ে থাকে। আর যদি কেউ তার দ্বীনের ক্ষেত্রে শিথিল হয়ে থাকে তাহলে তাকে সে মোতাবেক পরীক্ষা করা হয়। অতএব, বান্দার ওপর বিপদ-আপদ লেগেই থাকে, অবশেষে তা তাকে এমন অবস্থায় ছেড়ে দেয় যে সে ভূপৃষ্ঠে চলাফেরা করে অথচ তার কোনো গুনাহই থাকে না। (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ২৩৯৮)
৩. ইজমা : আল্লামা ইবনে তাইমিয়া (রহ.) বলেন, ‘উম্মতের পূর্বসূরিরা, তাঁর ইমামগণ ও আল্লাহর নিকটবর্তী বান্দারা এ বিষয়ে একমত যে নবীগণ ওলিদের তুলনায় উত্তম।’ তিনি আরো বলেন, ‘মুসলিমরা এ বিষয়ে একমত যে নবী-রাসুলরাই সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ মানব।


তাদের পরে সিদ্দিক, শহীদ ও সালিহ।’ (মিনহাজুস সুন্নাহ, পৃষ্ঠা ৪১৭)
৪. যুক্তির দাবি : আল্লামা ইবনুল কাইয়িম (রহ.) বলেন, ‘নবী-রাসুলদের মর্যাদা ও সম্মান প্রমাণের জন্য এতটুকু যথেষ্ট যে আল্লাহ তাদের ওহি প্রেরণের জন্য মনোনীত করেছেন, তিনি তাদের রিসালাতের সংরক্ষক ও তাদের তাঁর ও তাঁর বান্দাদের মধ্যে মাধ্যম বানিয়েছেন।’ (তরিকুল হিজরাতাইনি, পৃষ্ঠা ৩৫০)

নবীদের মধ্যে আছে মর্যাদার তারতম্য :

নবী-রাসুলগণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম মানুষ। তবে তাদের মর্যাদায়ও রয়েছে তারতম্য। মহান আল্লাহ বলেন, ‘এই রাসুলগণ, তাদের মধ্যে কতককে কতকের ওপর শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছি। তাদের মধ্যে এমন কেউ আছে, যার সঙ্গে আল্লাহ কথা বলেছেন, আবার কাউকে উচ্চ মর্যাদায় উন্নীত করেছেন। মারইয়াম-তনয় ঈসাকে স্পষ্ট প্রমাণ প্রদান করেছি ও পবিত্র আত্মা দ্বারা তাকে শক্তিশালী করেছি।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ২৫৩)

সর্বশেষ
জনপ্রিয়