ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৪ ১৪২৭

দেশে আর কেউ না খেয়ে থাকবে না- প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৪৮, ১৭ অক্টোবর ২০২০  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা মহামারির কারণে একটি মানুষও না খেয়ে কষ্ট পাবে না। গৃহহীন থাকবে না কোনো মানুষ। প্রত্যেকটা মানুষ চিকিৎসা সেবা পাবে। বিশ্ব খাদ্য দিবস উপলক্ষ্যে এক আন্তর্জাতিক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চলমান মহামারির মধ্যে আমরা একটি ঘূর্ণিঝড়, বন্যাসহ অনেকগুলো সমস্যার মুখোমুখি হয়েছি। অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে আমরা পরিস্থিতির মোকাবিলা করেছি। এভাবেই প্রকৃতির সঙ্গে লড়াই করে আমাদের বাঁচতে হবে। তবে আমাদেরকে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা জরুরি। যাতে করে প্রতিটি মানুষ খাদ্য পান।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর সরকার খাদ্য উৎপাদনে সচেষ্ট ছিল । যে কারণে দুর্ভিক্ষ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। সবাই খাদ্য পাচ্ছে। খাদ্য নিয়ে কাউকে ভাবতে হয়নি। তিনি বলেন, সরকার মহামারির শুরুতেই কৃষিখাতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে। তার সুফল পেতে শুরু করেছি আমরা।

ওদিকে করোনায় মৃত্যু, আক্রান্ত এক জায়গায় স্থির হয়ে আছে। গত ২৪ ঘণ্টার পরিসংখ্যান এমন ইঙ্গিতই দিচ্ছে। স্বাস্থ্য বুলেটিনে বলা হয়, এই সময়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ৫২৭ জন। আগের দিন ১৫ জন মারা যান। আক্রান্ত হন ১৬০০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৫০৯ জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ৭৩৮ জন। সুস্থতার হার ৭৭ দশমিক ৮৯ শতাংশ। মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৬ শতাংশ।

শুক্রবার থেকে সিনেমা হল খোলার কথা ছিল। কিন্তু বেশিরভাগ হলই বন্ধ রয়েছে। মালিকরা বলছেন, তারা পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেবেন। তারা মনে করেন, এই পরিস্থিতিতে হল খোলা রাখা হলে লোকসানের পরিমাণ আরও বাড়বে। গত ১৪ই অক্টোবর তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে সিনেমা হল খোলার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়। বলা হয়, করোনাকালে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে হল খুলতে হবে। সিনেমা হলের আসন সংখ্যার কমপক্ষে অর্ধেক আসন খালি রাখার কথাও বলা হয়।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়